যশোরে ভোটারদের আগ্রহ নেই, কর্মকর্তাদের অলস সময় পার

বিল্লাল হোসেন, যশোর প্রতিনিধি: যশোরের শার্শা বাদে অন্য ৭ উপজেলায় চতুর্থ ধাপের নির্বাচন চলছে। সকাল ৮টা শুরু হয়েছে ভোটগ্রহণ কার্যক্রম। কিন্তু ভোট কেন্দ্রে দেখা মিলছে ভোটারের। তাদের মাঝে ভোটারধিকার প্রয়োগের কোন আগ্রহ নেই ।

একাধিক কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে, দুপুর দুইটা পর্যন্ত কোন কেন্দ্রে ভোটারের লম্বা লাইন ছিলো না। মাঝে মধ্যে দুই একজন ভোটার আসছেন। তারা ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। ভোট কেন্দ্রে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা এক প্রকার অলস সময় পার করছেন। তবে এখনো কোন কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানাগেছে, এবারের নির্বাচনে যশোরের ৭ উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন ৮৩ প্রার্থী। এরমধ্যে এসব উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রতিদ্বন্ধী হিসেবে দলীয় স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ভোটযুদ্ধে রয়েছেন।

আর মোট ভোটার ১৮ লাখ ১ হাজার ২১১জন। প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার এবং পোলিং অফিসার হিসেবে ১৬ হাজার ১১১জন ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা জেলার ৬৯১টি কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করছেন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানান, শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ চলছে। ভোটাররা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিতে পারছেন। তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ও বিজিবি দায়িত্ব পালন করছেন।

নির্বাচনে যশোর সদর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুই প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহামুদ বিপুল টিউবয়েল মার্কায় ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল তালা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সেতারা খাতুন হাঁস প্রতীক ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর নূর জাহান ইসলাম নীরা ফুটবল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

কেশবপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন তিনজন। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত এইচএম আমীর হোসেনের মার্কা নৌকা , স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী রফিকুল ইসলামের আনারস এবং জাতীয় পার্টির হাবিবুর রহমানের লাঙল।

এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে কবির হোসেন চশমা, আব্দুল লতিফ রানা উড়োজাহাজ, পলাশ কুমার মল্লিক তালা, হাবিবুর রহমান টিউবওয়েল ও সাইদুর রহমান গাজী টিয়া পাখি ও এস এম মাহাবুবুর রহমান মাইক প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নাসিমা আক্তার সাদেক হাঁস ও রাবেয়া খাতুন ফুটবল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

মণিরামপুরে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত জেলা যুব মহিলা লীগের সহ-সভাপতি ও বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা খানম নৌকা প্রতীক, আর স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলু মোটরসাইকেল ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান আনারস প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে রয়েছেন।

এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাসেম আলী মাইক, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক সন্দীপ কুমার ঘোষ টিউবওয়েল, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক উত্তম কুমার চক্রবর্তী তালা ও মিকাইল হোসেন চশমা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রীতা পাঁড়ে ফুটবল, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি কাজী জলি আক্তার কলস ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আসমাতুন্নাহার হাঁস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন।

অভয়নগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত শাহ ফরিদ জাহাঙ্গীর নৌকা ও দলীয় স্বতন্ত্র প্রার্থী রবিন অধিকারী আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে আব্দুর রউফ মোল্যা টিয়া পাখি, আক্তারুজ্জামান তারু টিউবওয়েল, বিপুল শেখ তালা, আব্দুল মান্নান চশমা, হুমায়ুন কবির মধু উড়োজাহাজ ও আতিয়ার রহমান বাবু প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

এদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদা বেগম প্রজাপতি ও মিনারা পারভীন পেয়েছেন ফুটবল ও ডা. সাফিয়া খানম হাঁস প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

বাঘারপাড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ছয়জনের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাসান আলী নৌকা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী দোয়াত কলম, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও জামদিয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল আনারস, ইসলামী ঐক্যজোটের মিজানুর রহমান মিনার, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আলি জিন্নাহ আম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মঞ্জুর রশিদ স্বপন মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবুল কালাম আজাদ উড়োজাহাজ, আব্দুর রউফ বই, মাজিদুল ইসলাম টিউবওয়েল, রাকিব হাসান শাওন টিয়া পাখি, শচীন্দ্র নাথ বিশ্বাস তালা, ফয়সাল আহমেদ মিল্টন বৈদ্যুতিক পাখা, গোলাম ছরোয়ার পালকি, নাজমুল হুসাইন চশমা, এনায়েত হোসেন লিটন মাইক ও জয়নাল আবেদীন আইসক্রিম প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিথিকা বিশ্বাস পদ্মফুল, শরিফা খাতুন কলস, জাকিয়া সুলতানা হাঁস, শিরিন শবনম কবির ফুটবল ও দিলারা জামান প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

ঝিকরগাছা উপজেলার এক কেন্দ্রে ভোটারশূন্য মাঠে কুকুর বসে আছে

চৌগাছা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. মোস্তনিছুর রহমান নৌকা ও দলীয় স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমান আনারস প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয় মাইক, সিদ্দিকুর রহমান তালা, আসাদুজ্জামান চশমা, আজাদ রহমান খান উড়োজাহাজ, সামছুর রহমান টিউবওয়েল, শামীম রেজা বৈদ্যুতিক বাল্ব ও জসিম উদ্দিন বই প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আকলিমা খাতুন লাকী হাঁস কামরুন্নাহার শাহিন ফুটবল, রিপা ইসলাম প্রজাপতি, নাছিমা খাতুন কলস ও নাজনীন নাহার বৈদ্যুতিক পাখা নিয়ে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন।

ঝিকরগাছা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী রায়হান নৌকা, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম আনারস, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির সাথী বেগম আম ও ইসলামী ঐক্যজোটের হাবিবুর রহমান মিনার প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

এদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে মাহমুদুল ইকরাম টিয়া পাখি, সেলিম রেজা তালা, ইদ্রীস আলী বিশ্বাস টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে রয়েছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে লুবনা তাক্ষী পদ্মফুল, শিরিন জেসমিন মোছাম্মদ মঞ্জুন্নাহার নাজনিন বৈদ্যুতিক পাখা, আমেনা খাতুন হাঁস, তাজবিন সুলতানা কলস, শাহানারা খাতুন ফুটবল ও নাহিদ আক্তার প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

এদিকে শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান ও দুই ভাইস চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় এখানে ভোট হচ্ছে না। যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদেও শাহীন চাকলাদার নির্বাচিত হয়েছেন। তবে এখানে দুই ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হচ্ছে।

/আরএ/বিআইজে

Comments