‘কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরিয়ে আসছে’

জনগণের রোষের কাছ থেকে কেউ নিস্তার পাবে না বলে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত নেতাকর্মীরা এখন দুর্নীতিতে নিমজ্জিত তারই কিছু প্রমাণ গত কয়েকদিন যাবৎ দেখছেন। এমন না যে তারা কেউ জড়িত নেই সবাই জড়িত আছে। এখন তো কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরিয়ে আসছে। সুতরাং কারো থেকে নিস্তার নেই।

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নবনির্বাচিত সভাপতি-সম্পাদককে নিয়ে রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় যুবলীগ-ছাত্রলীগ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত তারা সবখানেই ভয়াবহ দুর্নীতিতে নিমজ্জিত হয়েছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দেশের জন্য জনগণের জন্য অত্যন্ত ভয়ঙ্কর একটি পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

‘জিয়াউর রহমান দেশে ক্যাসিনো চালু করেছেন’ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, তারা এই সমস্ত কথা বলে নিজেদের দোষ ত্রুটি এড়িয়ে যেতে চায়। আজকের পত্রিকা থেকে প্রমাণিত হয়ে গেছে যে আওয়ামী লীগ সরকার শুধু দুর্নীতি নয় দেশের রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক সকল কাঠামো ভেঙে দিয়েছে। সত্যিকার অর্থে এই দেশকে একটি অকার্যকর রাষ্ট্র হিসেবে পরিণত করেছে।

ছাত্রদলের নবনির্বাচিতদের প্রসঙ্গে বিএনপির এই নেতা বলেন, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের তত্ত্বাবধানে অত্যন্ত সুষ্ঠুভাবে ছাত্রদলের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে এবং আমাদের তরুণ দুজন মেধাবী ছাত্র নেতা নির্বাচিত হয়েছেন এবং ছাত্রদলের এই নেতৃত্ব দেশনেত্রী মুক্তির আন্দোলন গণতন্ত্র মুক্তি আন্দোলনের নেতৃত্ব নিঃসন্দেহে সবচেয়ে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে আমরা সবাই বিশ্বাস করি। বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনের সহ দেশের মানুষের তাদের প্রতি দোয়া আছে এবং তাদের প্রতি সবার সেই বিশ্বাস আছে যে তারাই আন্দোলনের সফল হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, নতুন নেতৃত্ব দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তির জন্য সারাদেশে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে ছাত্রদল এবং তার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত তারা ঘরে ফিরে যাবে না এই ছিল আজকে তাদের শপথ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, যুবদল সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সদ্য বিলুপ্ত ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাজীব হাসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল আহাসান, নবনির্বাচিত ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ কয়েক হাজার ছাত্রদল নেতা কর্মী।

Comments